২৫ ডিসেম্বর ২০১৯। বড়দিনের শুভেচ্ছা। ক্রিসমাস ট্রির ইতিহাস। সান্টা ক্লজের বিবরণ

Leave a Comment
হ্যালো বন্ধুরা আশা করি সকলে ভাল আছেন সামনেই বড়দিন আসছে। এই ছুটির দিনে আমরা অনেক রকম প্রগাম করে থাকি যেমন কোথায় ঘুরতে যাবো কি খাবো বন্ধুদের সাথে ফিস্টি। পরিবারের সাথে ঘোরা অনেক কিছু। কিন্তু আপনি জানেন কি ২৫ ডিসেম্বর বড়দিন কেন পালন করা হয়। ক্রিসমাস ট্রির ইতিহাস বা কে এই সান্টাক্লস আজ এই বিষয়েয় আমরা আলোচনা করবো জানতে চায়লে সাথে থাকুন

25 December 2019

২৫ ডিসেম্বর ২০১৯ পৃথিবীর বহু দেশে #December মাসের ২৫ তারিখকে বড়দিন হিসেবে পালন করা হয়ে থাকে। অনেকে আবার এই দিনটিকে ক্রিসমাস ডে ও বলে থাকেন। এটি একটা খ্রীস্টিয় ধর্মাউৎসব শোনা যায় যীশু খ্রীস্টের জন্মদিন উপলক্ষে এই দিনটিকে বড়দিন বলা হয়। ২৫ ডিসেম্বর প্রায় সব ধর্মের মানুষ পালন করে থাকেন। ২৫ ডিসেম্বর ২০১৯ সমস্ত স্কুল, কলেজ এবং সরকারি ছুটি থাকে এবং সকলেয় পিকনিক করার মুডে থাকেন এইদিনে। অনেকে আবার কাছাকাছি গ্রীর্জায় গিয়ে মহান ঈশ্বরের কাছে পার্থনা করেন।
২৫ ডিসেম্বর ২০১৯ বড়দিনের শুভেচ্ছা পিক
বড়দিনের শুভেচ্ছা ছবি Pixbay

বড়দিন কি? ক্রিসমাস ডে বা বড়দিন কেন পালন করা হয়? 



প্রতি বছর ডিসেম্বর মাসের ২৫ তারিখে বড়দিন রুপে পালন করা হয় ।আমরা সকলে জানি ২৫ ডিসেম্বর ইতিহাসের এই দিনে মহান ঈশ্বর যীশু মাতা মেরির কোলে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তিনি ছিলেন একজন ইহুদি ধর্ম প্রচারক। যীশু খ্রীস্টের পদবি অনুযায়ী খ্রীস্টিয় ধর্ম প্রচার হয়।

খ্রিষ্টান ধর্মের মানুষ বিশ্বাস করেন যীশু খ্রিষ্টের জন্ম হয়েছিল ঈশ্বরের মহিমা প্রচার এবং মানুষকে সত্য আর ন্যায়ের পথে চালনা করার জন্য। তিনি ঈশ্বরের বাণি সকলের সমূখে তার বার্তা অনুযায়ী তুলে ধরতেন তাই যীশুর জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে বড়দিন বা ক্রিসমাস ডে পালন করা হয়। যদিও এটা খ্রিস্টিয় ধর্ম উৎসব কিন্তু সদ্ধা এবং বিশ্বাসের সাথে বহু অ-খ্রিস্টিয় মানুষ ২৫ ডিসেম্বর ২০১৯ বড়দিন পালন করে থাকেন।

ক্রিসমাস ট্রি কি?

25 ডিসেম্বর বড়োদিনের সময় আপনি কোন গ্রীর্জার কাছাকাছি গেলে দেখতে পাবেন সেখানে সেখানে বেশ কয়েকটি গাছ সুন্দর করে সাজানো থাকে এটা সত্যি কারের গাছও হতে পারে আবার প্লাস্টিকেরও হতে পারে। এটা মূলত ফার গাছ দেবদারু জাতীয়।

২৫ ডিসেম্বরের বড়োদিনে প্রায় সমস্ত গ্রীর্জার সামনে ফার গাছ আরও সুন্দর দেখানোর জন্য মোমবাতি, লাইটিং, প্লাস্টিকের পাখি ও আপেল দিয়ে এই গাছ এতো সুন্দর করে সাজানো হয় যেকোন মানুষের দৃষ্টি কেরে নেবে। শুধু যে চার্চের কাছে এই গাছ থাকে তা কিন্তু না। অনেক রাজবাড়ীর গেটে বা রাস্তার সাইডেও বড়দিনে ক্রিসমাস ট্রি দেখা যায়। 
ক্রিসমাস ট্রি বড়দিনের শুভেচ্ছা
ক্রিসমাস ট্রি ছবি Pixbay

ক্রিসমাস ট্রির ইতিহাস 



আমরা প্রতি বছর বিশেষ করে ২৫ ডিসেম্বর দেখে থাকি অনেকে বাড়ির সামনে বা গ্রীর্জা ঘরে ফুল,ফল,পাখি ইত্যাদি দিয়ে সুন্দর করে ক্রিসমাস ট্রি সাজাচ্ছেন। কিন্তু আপনার কি কখনো মনে হয়েছে কেন এই ক্রিসমাস ট্রি সাজানো হয় বা এই গাছের নাম কি। জেনেনিন ক্রিসমাস ট্রির ইতিহাস বাংলায়।

বেথেলহেম নামে একটি ছোট গ্রামে মাতা মেরির গর্ভে যীশু খ্রীষ্টের জন্মহয়। যীশুর জন্মের পরে তাকে স্বাগত জানাতে এবং মাতা মেরিকে অভিনন্দন জানাতে কাছাকাছি থাকা অনেক গবাদিপশু এসেছিল তাকে প্রনাম জানাতে। তখন একটি গাছের সৃষ্টি হয় ফার গাছ দেবদারু জাতীয়। এই গাছ কখনো শোকায় না এমনকি বরফেও এই গাছ সবুজ পাতায় সর্বদা দেখা যায়। অন্য দিকে সবুজ গাছে পুরো জঙ্গল ভরে ওঠে।

অপরদিকে ক্রিসমাস ট্রির আরও একটা কাহিনি রয়েছে শোনা যায় যীশু খ্রিষ্টের জন্মের সময় সমস্ত দেবদূত তারার রূপে তাকে স্বাগত জানান এবং এই গাছ উপহার দেন তাই। যীশু ছিলেন একজন ইহুদি ধর্ম প্রচারক তিনি মানুষকে সত্য এবং ন্যায়ের পথে চলার পরামর্শ দিতেন। যীশু খ্রিষ্ট বলেছেন পাপিকে নয় পাপকে ঘৃণা করো।
ক্রিসমাস ট্রির ইতিহাস বড়দিন
ক্রিসমাস ট্রির ইতিহাস ছবি Pixbay


সান্টাক্লজের বিবরণ 


বর্তমানে আমরা সান্টাক্লজ বলতে বুঝি একটু মোটা সাদা দারি গোফ হাঁসি মুখে একজন বয়স্ক মানুষ। যার কোমরে রয়েছে কালো বেল্ট, পরনে রয়েছে লাল পেন্টও কোট এবং পিঠে রয়েছে একটা ঝোলা যাইতে ছোট বাচ্চাদের জন্য থাকে নানান রকমের উপহার। অনেকে আবার তাকে ফাদার খ্রিষ্টমাস বলেও জানেন।

এশিয়ার পাতারা নামে কোন এক অঞ্চলে সেন্ট নিকোলাস নামে এক ব্যাক্তি বসবাস করতেন তিনি সমস্ত মানুষকে খুব ভালো বাসতেন বিশেষ করে গরিব দুঃখীদের পাশে সব সময় ওনাকে পাওয়া যায়। শোনা যায় তার কাছে সমস্ত ভালো এবং দুষ্টু ছেলে মেয়েদের একটা লিস্ট থাকতো ২৫ ডিসেম্বরের আগের দিন অর্থাৎ ২৪ #ডিসেম্বরের মধ্য রাতে তিনি ছোট ছোট ভাল শিশুদের বাড়িতে উপহার পৌঁছে দিতেন।
২৫ ডিসেম্বর ২০১৯ বড়দিনে সান্টাক্লজ
সান্টাক্লজ


২৫ ডিসেম্বর ২০১৯

২৫ শে ডিসেম্বর ২০১৯ এই বড়োদিনে কামনা করি মহান ঈশ্বর আপনাদের সকলের প্রতি সহানুভূতি হোক এবং আপনার পরিবারকে সব সময় হাসিখুশি রাখুক। বড়দিনে সকলে ভাল থাকুন এবং সপরিবার ও বন্ধুদের সাথে মজা করুন।


If you like this article share this in your social sites
Next PostNewer Post Previous PostOlder Post Home

0 Comments:

Post a comment