কলা গাছ কলা ও তার উপকারিতা

1 comment
কলা প্রত্যেক মানুষের প্রিয় একটা সুস্বাদু খাবার। মানছি এই খাবারের নাম শুনে কারোর জিভে জল আসে না। কিন্তু কলা খেলে সমস্ত মানুষের মন ভরে যায়। আর স্বাস্থ্যের জন্য কলা খুবই উপকারী। হোক না সেটা কাঁচ কলা বা পাকা কলা। কাঁচা কলা হলে জেন্ত চারা মাছের সাথে ভালোই লাগে। আর পাকা কলা হলে খাবার পরে বা সকালে খালি পেটে খেলে।

কলা গাছ কলা ও তার উপকারিতা

কলা গাছের পাতা অনেক বড়ো ও সবুজ রঙের হয়ে থাকে। সাধারনত  চাষের জন্যই এই গাছ ব্যবহার করা হয়। ফল, পাতা, মোচা ও ঠোরের জন্য এই গাছ উতপাদন করা হয়ে থাকে। কলা  পাতা অনেক বড়ো আর মজবুত হয় আর ফল ঝোলানো অবস্থায় এক গূচ্ছ হয়।একটা গোছায় প্রায়  ১৫ থেকে ২০ টা কলা থাকে।

কলা গাছকে অনেক শুভ মনে করা হয় কারণ স্বরূপ এই গাছের সমস্ত কিছু বিক্রী করা যায়।কলা পাতায় এখনো অধিকাংশ মানুষ খাবার খায়। এছাড়া  হিন্দু ধর্মের অনেক পূজোয় এই গাছ লাগে। অনেকে বাসার সামনে বাগানে কলা গাছ চাষ করে। অনেকে পশুর খাবারের জন্য কলা গাছ পাতা কলার খোশা  ব্যবহার করে।

কলা গাছ ২৫ ফুট লম্বা হতে পারে  এবং সারা বছর  ফল ধরে।  কলার পাতা ৩ মিটারের বেশি বরো হতে পারে। কলার খোসা দাঁতের জন্য খুব উপকার।  রোজের কলার খোসা দাঁতে ঘষলে দাঁতের  হলুদ দাগ দূর হয় এবং দাঁত চকচক করে। কলা গাছের কোন ডাল নেই এটা সম্পূর্ণ পাতা।এবং যতো দিন এই গাছ ফল দেয় ততোদিন বেঁচে  থাকে তার পর শুকিয়ে যায়।

কলার উপকারীতা


কলা সধারনত ২ প্রকার হয়ে থাকে।
১) পাকা কলা যা আমরা ফল স্বরূপ খেয়ে থাকি।
২) কাঁচাকলা যেটা সবজি হিসেবে ব্যবহার করি।এদের দুজনের আলাদা আলাদা গুন আছে।কলার উপকারীতা বিষয়ে আমরা কম বেশি সবাই জানি।কলা খাবারের সাথে অনেক রোগব্যাধী দূর করে আমাদের উপকার করে থাকে।আসুন প্রথমে কাঁচ কলার উপকার ও গূণ বিষয়ে জানি।


কাঁচ কলার উপকারীতা

এই পারিশ্রমিক জীবনে আমরা ক্লান্ত হয়ে পরি। কাঁচ কলা খেলে শরীরের ক্লান্তী ভাব দূর হয়।কলায় ভিটামিন বি আছে যা শরীরের সুগার নিয়ন্ত করে ও ক্লান্ত ভাব দূর করে। এছারা স্ট্রোকের স্ম্ভাবনা দূর করে এবং পাকস্থলীর রোগ থেকে আরাম পাওয়া যায়, এছারা সর্দীকাশী থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

অতিরিক্ত খিদের জ্বালা মেটায়। যাদের বাতের ব্যামো আছে তাদের অবশ্যই খাওয়ার দরকার কাঁচ কলা এখেত্রে কলার গূণ অতুলনিও। কাঁচা কলার খোসা ফেলে না দিয়ে ছোট করে টুকরো করে ভাঁপিয়ে নিন সঙ্গে একটু কালো জিরা, গোল মরীচ গূরো, পেঁয়াজ, সরষের তেল ও নুন দিয়ে রান্না করে ফেলুন। অসাধারণ খেতে লাগে।  আসুনএবার দেখে নিই পাকা কলার গূন।


পাকা কলাও তার উপকারীতা



পাকা কলা যেমন মিস্টী তেমনি সুস্বাদু খেতে। এটা সব বয়সের মানুষ খেতে পারে। সকালে পাকা করে খেলে খিদে ভাব দূর করে।পাকা কলা শরীরের শক্তি খমতা বারায়। যারা শ্রমিক  তাদের জন্য দিনে ২ টো কলা অবশ্য খাওয়া দরকার। কারণ কলা পেটের সব রকমের রোগ দূর করে ও পেটের নোংরা বের করে দেয়।

পাকা কলা শরীরের হাড় মজবুত রাখে ও খয় ভাব দূর করে। এছাড়াও কলা রূপচর্চার  জন্য দারুণ কাজ করে। মুখের কালো দাগ দূর করে। ব্রণো দূর করে এবং মূখের তৈলাক্ত ভাব নষ্ট করে।
তাহলে বন্ধুরা আজ এই পর্যন্ত যদি কোন উপকার পেয়ে থাকেন অবশ্যই কমেন্ট করে ও শেয়ার করে উতসাহ দেবেন ধন্যবাদ।
কলা গাছ ও তার উপকারিতা




If you like this article share this in your social sites
Next PostNewer Post Previous PostOlder Post Home

1 comment:

  1. বেশ সুন্দর লিখেছেন এবং এর থেকে অনেক কিছু জানতেও পারলাম ধন্যবাদ।

    ReplyDelete