ব্লগে seo friendly পোস্ট বা আর্টিকেল লেখার নিয়ম

Leave a Comment
আমরা google এ সার্চ করে বা ইউটিউব ভিডিও দেখে একটা ব্লগ সাইটতো তৈরি করে নিই কিন্তু যখনিই আমরা ব্লগে লেখালিখি শুরু করি দেখা যায় আমাদের ব্লগের পোস্ট google search engine এ আসছে না। এর কারণ হতে পারে ব্লগে পোস্ট করার নিয়ম সঠিক নিয়ম আমাদের জানা নেই।

যদি আপনি একজন ব্লগার হয়ে থাকেন তবে আপনি একটা জিনিস নিশ্চয় খেয়াল করেছেন সার্চইঞ্জিনে সেই সকল পোস্ট বেশি রেংর্ক করে যেগুলো অনেক লম্বা আর ইউনিক হয়। কিন্তু আমরা ব্লগে লেখার সময় এগুলো খেয়াল রাখিনা আর হিজিবিজি লিখতে থাকি তার ফলে আমাদের ব্লগ পোস্ট সহজে রেংর্ক করেনা।

ব্লগ লেখার নিয়ম জানার আগে আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে আর্টিকেল নিজে লেখার চেষ্টা করবেন আর সুন্দর ভাবে লিখবেন যাতে কোন ভিজিটর আপনার ব্লগ পোস্ট পড়ে বোরিং না হয় আর সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ে।

আপনি যদি নতুন ব্লগার হয়ে থাকেন আর ব্লগে কিভাবে লিখতে হয় এই ধারণা না থাকে আর আপনার ব্লগ সাইট যদি বাংলায় হয় তবে আপনি bn.quora.com সাইটে সকলের উত্তর দেখে ও নিজে লেখালিখি করেও অনেক জ্ঞান আহরণ করতে পারেন।
বাংলা ব্লগে পোস্ট বা আর্টিকেল লেখার নিয়ম
ব্লগ লেখার নিয়ম


বাংলা ব্লগে পোস্ট বা আর্টিকেল লেখার নিয়ম



আমাদের মধ্যে এমন অনেক বাংলা ব্লগার রয়েছেন যারা বাংলা আর্টিকেল লিখে টাকা আয় করার জন্য তাদের ব্লগে daily অনেক পোস্ট লেখেন কিন্তু দেখা যায় তাদের ১০ টা পোস্টের মধ্যে ১ টা সার্চইঞ্জিনে আসছে আর বাকি গুলো খুঁজেই পাওয়া যায় না।

পোস্ট কাউন্ট করার জন্য ব্লগে পোস্ট করার থেকে ভাল একটাই পোস্ট লিখুন অনেক সময় নিয়ে। আপনার ব্লগ পোস্ট আপনার পছন্দ না হলে google বা আপনার ভিজিটরের পছন্দ হবে কি ভাবে।

যেমন পরিক্ষার খাতায় ভাল লিখলে বেশি নাম্বার পায় আর খারাপ লিখলে কম নাম্বার পায় এটাও তেমনি বিষয় এখানেও কম্পিটিশন হয় আর যে যত ভাল লেখালিখি করবে google তাদের সার্চে সেই ব্লগ কে প্রথম সারিতে নিয়ে আসবে।
powered by blogger কিভাবে রিমুভ করে?
ব্লগে সোশ্যাল শেয়ার বটন কিভাবে যুক্ত করে?

ব্লগে কিভাবে একটি আর্টিকেল লিখতে হয় জানার আগে আপনি যেই বিষয় লিখতে চায়ছেন অবশ্যই সেটা গুগলে একবার সার্চ করে দেখেনেবেন সেই বিষয়ে অন্য কেউ আপনার আগে পোস্ট করেছে কি না যদি করে তাহলে আপনি তার থেকে একটু আলাদা ভাবে লেখার চেষ্টা করুন।

আপনার আর্টিকেল রিলেটেড আরও ৫-৬ টা পোস্ট পড়ুন আর সেখান থেকে important word গুলো কাউন্ট করুন। আপনার আর্টিকেল রিলেটেড শব্দ গুলোই শুধু পোস্টে জুড়বেন তবে কোথাও থেকে কপি করে না অন্যের পোস্ট থেকে আপনি শুধু ধারনা নিতে পারেন।

ব্লগে এমন আর্টিকেল লিখুন যাতে সকলের পছন্দ হয়। ব্লগে এমন আর্টিকেল লিখুন যেটা একবার পড়লে দ্বিতীয়বার পড়তেও ভাল লাগবে। ব্লগে এমন আর্টিকেল লিখুন যেখান থেকে নতুন কিছু শেখা বা জানা যায়। ব্লগে এমন আর্টিকেল লিখুন যেটা শেয়ার করতে ইচ্ছে করবে।

ব্লগে seo friendly পোস্ট বা আর্টিকেল লেখার নিয়ম



গুগলে রেংক করার জন্য আর্টিকেল কেমন হওয়া প্রয়োজন এই ধারণাটা আমরা ওপরে পেয়ে গেলাম এবার আমরা ধাপে ধাপে জানবো ব্লগে seo friendly পোস্ট বা আর্টিকেল কিভাবে লিখতে হয় যাতে আমাদের ব্লগ গুগলের প্রথম সারিতে তাড়াতাড়ি আসে।

Post titles- ব্লগ পোস্ট টাইটেল একটা most powerful parts for ranking your blog আপনার ব্লগ পোস্ট রিলেটেড ব্লগ টাইটেল রাখবেন এবং তার সাথে কিছু important word যুক্ত করতে পারেন যেমন top10, new, latest, powerful etc.

post introduction- পোস্ট লেখার আগে আপনি কোন বিষয় নিয়ে পোস্ট লিখছেন সংখ্যেপে তার বর্ণনা দিন যাতে আপনার ভিজিটর পোস্ট পড়তে শুরু করলে সে impress হয়।

post heading- ব্লগ লেখার সময় আমরা যেই টাইটেল ব্যাবহার করি আমাদের ব্লগের পোস্টেও সেটা বা সেই রিলেটেড আরও হেডিং দেওয়া প্রয়োজন যাতে ভিজিটরের বুঝতে সুবিধা হয়। ব্লগারে heading, subheading আর minior heading এগুলো আপনি পোস্টে ব্যাবহার করতে পারেন এছাড়াও পোস্টে italics, bold, under line দিতে পারেন।

ব্লগে robot.txt ফাইল যুক্ত করার নিয়ম
ব্লগে meta tag কোড যুক্ত করার নিয়ম

post content- ব্লগে এসসিও ফ্রেন্ডলি পোস্ট লিখতে হলে মিনিমাম আপনার পোস্ট ৫০০ থেকে ৭০০ ওয়ার্ডের হতে হবে। এমন পোস্ট সহজেই গুগলে রেংর্ক করে। কিন্তু পোস্ট লম্বা কড়ার জন্য হিজিবিজি লিখবেন না শুধু আপনার পোস্টের বিষয় নিয়েই লিখুন।

post images- সাধারণত post introduction দেওয়ার পরেই পোস্টের একটা copyright free image দেওয়া উচিত। সব সময় ব্লগের জন্য নিজে ইমেজ তৈরি করার চেষ্টা করবেন আর একদম না পারলে pixabay.com বা  shutterstock থেকে নিতে পারেন।

Image caption- আপনার ব্লগ পোস্টে যেই ছবিটি ব্যাবহার করছেন অবশ্যই ছবিটির নাম দেবেন। পোস্টেের ইমেজও অনেকটা পোস্ট রেংর্ক করতে সাহায্য করে। কিন্তু নতুন ব্লগাররা তাড়াহুড়ো করে অনেক সময় এই ভুলটা করে থাকে।

post keywords- ব্লগে লেখার আগে আপনার টপিক অনুযায়ী keywords research করেনিন আর যেসকল বিষয়ে বেশি সার্চ করা হয় সেই কিওর্য়াড গুলো পোস্টে যুক্ত করতে পারেন। এর জন্য আপনি trends.google.com, google keywords planer, ubersuggest, keywords.io ইত্যাদি সাইটের সাহায্য নিতে পারেন।  

post discretion- আপনার পোস্টের জন্য অবশ্যই ১৫০ ওয়ার্ডের একটা description দেবেন যেটা দেখলে ভিজিটরের আপনার পোষ্টের প্রতি আগ্রহ আসে। এই description আপনার পোস্ট টাইটেলের নিচেই গুগল সার্চে আসবে।

post link- পোস্ট লেখার সময় একটা automatic permalink তৈরি হয়ে যায় তবে আপনি চাইলে তাকে customize করতে পারবেন। খেয়াল রাখবেন আপনার পোস্ট লিংক জানো ছোট আর পোস্টের রিলেটেড হয়।

ব্লগে পোস্ট লেখার নিয়ম 

  1. প্রথমে blogger.com সাইটে চলে যান লগইন না থাকলে লগইন করেনিন। 
  2. এবার ব্লগার হোম পেজ থেকে New post ক্লিক করুন।
  3. ওপরের ছোট বক্সে আপনার পোস্ট title দিন।
  4. এবার পোস্ট লেখা শুরু করুন।
  5. link এর পাশে ছবির আইকনে ক্লিক করে একটা ছবি আপলোড করুন।
  6. Label এখানে কোন বিষয়ে পোস্ট সেই tag দিন যেমন রান্নার হলে রেসিপি, খেলার হলে sport ইত্যাদি। 
  7. permalink থেকে পোস্ট titel অনুযায়ী url তৈরি করুন।
  8. search description এ ব্লগ পোস্টের বিষয়ে ১৫০-১৬০ ওয়ার্ডে সংখ্যেপে লিখুন।
  9. এবার আপনার পোস্ট publish করে দিন।
ব্লগ পোস্ট লেখার নিয়ম
শেষ কথা (final word)
বন্ধুরা আমরা এই পোস্টে জানলাম ব্লগ লেখার নিয়ম। যার সাহায্যে আমরা আমাদের ব্লগে সুন্দর একটি এসসিও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লিখতে পারি। আপনার ব্লগ গুগলে রেংর্ক করতে আমাদের এসসিও রিলেটিভ পোস্ট গুলো পড়তে পারেন আর এই পোস্টের বিষয় কিছু জানার থাকলে কমেন্ট করে জানাবেন। আর আমাদের পোস্ট আপনার ভাল লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করে উতসাহ দেবেন ধন্যবাদ।
Read More

ঘরে বসে গুগল থেকে অনলাইনে ইনকাম করার ৫ টি সেরা কার্যকর উপায়

Leave a Comment
ইন্টারনেটের যুগে অনলাইনে টাকা আয় করা এখন অনেক সহজ হয়ে গেছে। তবু আমরা আমাদের ফ্রি সময় গেম খেলে, ভিডিও দেখে, সোশ্যাল মিডিয়ায় নষ্ট করছি। কিন্তু কখনো কি আপনি ভেবে দেখেছেন এই ফ্রি সময়টাকে কাজে লাগিয়ে কিভাবে অনলাইনে ইনকাম করা যায়। 

আমরা প্রায় শুনি অনলাইনে ইনকাম করা যায় কিন্তু সঠিক তথ্য আমাদের কাছে না থাকার কারণে আমরা অনলাইনে ইনকাম করতে পারি না তাই আজ আপনাদের সাথে আমরা শেয়ার করতে চলেছি অনলাইনে ইনকাম করার সেরা ৫ টা উপায়।

google বিশ্বের সব থেকে বড়ো আর বিশ্বস্ত কম্পানি তাই এখানে আমরা আজ ঘরে বসে গুগল থেকে অনলাইনে আয় করার ৫ টি সেরা উপায় আপনাদের সামনে তুলে ধরলাম। যেখান থেকে প্রতি নিয়ত মানুষ খুব সহজে অনলাইন ইনকাম করছে।
ঘরে বসে গুগল থেকে অনলাইনে ইনকাম করার ৫ টি সেরা কার্যকর উপায়
গুগল থেকে অনলাইন ইনকাম


ঘরে বসে গুগল থেকে অনলাইনে আয় করার ৫ টি সেরা কার্যকর উপায়

ইন্টারনেটের যুগে প্রত্যেক মানুষিই চায় কিভাবে অনলাইন ইনকাম করা যায়। আপনিও যদি Google এ সার্চ করে থাকেন কিভাবে ঘরে বসে গুগল থেকে অনলাইনে আয় করা যায় সেখানে হাজার উত্তর আপনি পেয়ে যাবেন তাই আজ আমরা জানবো গুগল থেকে অনলাইন ইনকাম কিভাবে করবো। top 5 idea earn money from google. 

এমনিতে অনলাইন ইনকাম করার অনেক পদ্ধতি রয়েছে যার মধ্যে আমরা আগেই শেয়ার করেছি মোবাইল দিয়ে অনলাইন ইনকাম /টকা আয় করার এপস আজ আমরা জানবো google থেকে অনলাইন ইনকাম কিভাবে করে। 

প্রথম:- ব্লগার থেকে কিভাবে অনলাইন ইনকাম করবো?



blogger হলো গুগলের no1 platform যেখান থেকে আপনি ভাল মানের অনলাইন টকা ইনকাম করতে পারেন। আমরা যখন আমাদের প্রয়োজনীয় কিছু খুঁজি সেটা সর্বপ্রথম গুগলে সার্চ করি কারণ আমরা জানি আমাদের প্রয়োজনীয় জিনিসটা এখানে রয়েছে। 

তেমনি মানুষের প্রয়োজনীয় কিছু তথ্য আপনি গুগলের free tool blogspot.com থেকে একটি সাইট তৈরি করে সেখানে শেয়ার করতে পারেন। আপনার ব্লগে যত বেশি ভিজিটর আসবে সেই অনুযায়ী আপনি গুগল থেকে অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন।  

ব্লগিং থেকে টাকা ইনকামের পাশাপাশি আপনি আপনার নিজের বিষয়ে আপনার জানা অজানা তথ্য সকলের সঙ্গে শেয়ার করতে পারেন। আপনার প্রতিভা সকলের কাছে প্রকাশ করতে পারবেন।

ফেসবুকে যদি আপনি কিছু শেয়ার করেন সেটা শুধু মাত্র হাতে গোনা আপনার কয়েকজন বন্ধু দেখতে পায়। কিন্তু আপনি যদি blogger.com থেকে একটা ব্লগ সাইট তৈরি করেন সেটা গোটা বিশ্বের মানুষ দেখতে পাবে।

অনলাইন ইনকাম করার জন্য কিভাবে ব্লগ সাইট তৈরি করবো?
ব্লগ থেকে অনলাইন ইনকাম করার সহজ উপায়
blogger থেকে কিভাবে অনলাইন ইনকাম করবো?
blogger থেকে অনলাইন ইনকাম

blogger থেকে কিভাবে অনলাইন ইনকাম করবো? 

  1. প্রথমে blogger.com থেকে একটি ব্লগ তৈরি করুন।
  2. আপনার ব্লগের ডোমেইন সিলেক্ট করুন। 
  3. আপনার সাইটের টেমপ্লেট আপলোড করুন।
  4. ব্লগার সেটিং ভাল করে করুন।
  5. ব্লগ গুগল সার্চ কনসোলে সাবমিট করুন।
  6. ব্লগে ইউনিক পোস্ট লিখুন।
  7. ব্লগের পোস্ট সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন।
  8. google adsense এর জন্য আবেদন করুন।
  9. এডসেন্স কোড আপনার ব্লগে জুড়ুন। 
  10. এখন আপনি গুগল থেকে ব্লগের মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন।

দৃতীয়:- ইউটিউব থেকে কিভাবে অনলাইন ইনকাম করবো?

ভিডিও কে না দেখতে পছন্দ করে। আজকাল ইন্টারনেট স্পিড অনেক ফাস্ট হওয়ার কারণে বেশির ভাগ মানুষ ইউটিউবে সময় দিচ্ছে কেউ বা ভিডিও তৈরি করছে আবার কেউবা ভিডিও আপলোড করছে। 

ইউটিউব হচ্ছে বিশ্বের সবথেকে বড়ো ভিডিও শেয়ারিং সোশ্যাল সাইট। কেউ বা এখানে movie দেখে, কেউ বা দেখে সিরিয়াল আবার কেউ বা দেখে কাটুন। প্রায় সব ধরনের ভিডিও আপনি এখানে পেয়ে যাবেন। কিন্তু আপনি জানেন কি কারা এই ভিডিও আপলোড করে?

আপনার আমার মতো সাধারণ মানুষ এখানে ভিডিও আপলোড করছে। হয়তো আপনি দেখে থাকবেন কোন ভিডিও চলতে চলতে মাঝের মধ্যে বিজ্ঞাপন দেখায় এই বিজ্ঞাপন থেকেই যে ব্যাক্তি ভিডিও আপলোড করেছে সে google থেকে অনলাইন ইনকাম করে।

আপনিও মনে করলে এমন ভিডিও তৈরি ইউটিউবে আপলোড করতে পারবেন । আপনার ইউটিউব চ্যানেলে যখন ১০০০ হাজার সাবস্ক্রাইব আর ৪ হাজার ওয়ার্চ টাইম হয়ে যাবে তখন আপনি google adsense এর সাথে আপনার চ্যানেল মনিটাইজ করে গুগল থেকে অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন।

মোবাইল দিয়ে ইউটিউব চ্যানেল কিভাবে খুলবো?
ইউটিউবে কিভাবে ভিডিও আপলোড করে?
YouTube থেকে কিভাবে অনলাইন ইনকাম করবো?
YouTube থেকে অনলাইন ইনকাম

YouTube থেকে কিভাবে অনলাইন ইনকাম করবো? 

  1. প্রথমে youtube.com থেকে একটি চ্যানেল তৈরি করুন।
  2. চ্যানেলের জন্য সুন্দর নাম রাখুন।
  3. YouTube কভার ফটো লাগান। 
  4. চ্যানেলের জন্য সুন্দর logo তৈরি করুন।
  5. ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করুন।
  6. ভিডিওতে customs thumbnail ব্যবহার করুন।
  7. ভিডিওতে title, tag, description দিন। 
  8. সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও শেয়ার করুন।
  9. ১০০০ হাজার সাবস্ক্রাইবার করুন।
  10. আপনার youtube channel গুগল এডসেন্সে জুড়ুন। 
  11. যখনি আপনার চ্যানেল মনিটাইজ হয়ে যাবে আপনার ভিডিওতে বিজ্ঞাপন আশা শুরু হয়ে যাবে। 
  12. এখন আপনি গুগল থেকে ইউটিউবের মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন। 

তৃতীয়:- google adsense থেকে কিভাবে অনলাইন ইনকাম করবো? 



গুগল এডসেন্স এমন এক এড নেটওয়ার্ক যার সাহায্যে আমরা ব্লগ বা ইউটিউব থেকে অনলাইন ইনকাম করতে পারি। গুগল এডসেন্স আমাদের ব্লগে আর ইউটিউবে তাদের বিজ্ঞাপন দেখায় এবং সেই বিজ্ঞাপনে কেউ ক্লিক করলে এডসেন্স আমাদের অর্থ প্রদান করে।

আমরা টিভিতে যেমন কোন বিজ্ঞাপন দেখি এটাও তেমনি। প্রায় সমস্ত ব্লগার আর বড়ো বড়ো ইউটিউবে গুগল এডসেন্স দেখা যায়। যেমনটা আপনি আমাদের ব্লগে দেখছেন এটাও গুগল এডসেন্সের বিজ্ঞাপন।

আপনি যদি গুগল এডসেন্স থেকে অনলাইন ইনকাম করতে চান তার জন্য অবশ্যই আপনার কাছে একটা ব্লগ বা ইউটিউব চ্যানেল থাকতে হবে তবেই আপনি গুগল এডসেন্সের বিজ্ঞাপন দেখিয়ে অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন।
google adsense থেকে কিভাবে অনলাইন ইনকাম করবো?
adsense থেকে অনলাইন ইনকাম


google adsense থেকে কিভাবে অনলাইন ইনকাম করবো?

  1. প্রথমে google adsense থেকে একাউন্ট তৈরি করুন।
  2. এবার আপনার ব্লগ বা ইউটিউব চ্যানেলকে এখান থেকে এপ্রভেল নিন। 
  3. যখন 10$ হয়ে যাবে আপনার এড্রেস ভেরিফাই করুন।
  4. যখন 100$ হয়ে যাবে আপনার bank এর মাধ্যমে টাকা তুলতে পারবেন। 

চতুর্থ:- Google play store থেকে app দিয়ে কিভাবে অনলাইন ইনকাম করবো? 

আমাদের যখনি কোন এপস প্রয়োজন হয় আমরা কোন কিছু না ভেবেই সরাসরি চলে যায় google play store এ তার কারণ আমরা জানি আমাদের প্রয়োজনীয় সমস্ত app আমরা এখানে পেয়ে যাবো। কিন্তু আপনি জানেন কি এই সকল এপস কারা তৈরি করে google play store এ আপলোড করেছে? 

অনেকেই মনে করেন এই সকল এপস গুগলের তৈরি কিন্তু তানা এগুলো আপনার আমার মতো সাধারণ মানুষ তৈরি করে আপনি মনে করলে আপনার পছন্দের কোন এপস তৈরি করে প্লেস্টোরে আপলোড করতে পারেন।

আমাদের প্রত্যেকের মোবাইলে অনেক এপস থাকে তবু আমরা প্লেস্টোর থেকে গেম, ব্রাউজার, ভিডিও এডিটিং এপস, ইত্যাদি নানান এপস ডাউনলোড করে থাকি আপনি মনে করলে এমন একটা এপস তৈরি করে Google admob থেকে অনলাইন ইনকাম করতে পারেন।
Google play store থেকে কিভাবে অনলাইন ইনকাম করবো
play store অনলাইন ইনকাম

Google play store থেকে কিভাবে অনলাইন ইনকাম করবো? 

  1. প্রথমে সুন্দর একটা এপস তৈরি করুন।
  2. আপনার এপসের সাথে admob যুক্ত করুন।
  3. আপনার তৈরি করা এপস play store এ আপলোড করুন।
  4. সোশ্যাল মিডিয়ায় আপনার এপস শেয়ার করুন।
  5. যতো বেশি আপনার এপস ডাউনলোড হবে ততো বেশি আপনি টাকা আয় করতে পারবেন। 

পঞ্চম:- Google adwords থেকে কিভাবে অনলাইন ইনকাম করবো? 



গুগল এডওয়ার্ড কি? এই বিষয়ে আমরা আগেই আলোচনা করেছি। googlr adwords হচ্ছে গুগলের এমন এক প্লাটফর্ম যেখান থেকে আপনি আপনার ব্যাবসার প্রমোট করতে পারেন। আপনার ব্যাবসার keywords অনুসারে গুগল আপনার সাইট প্রথম পেজে দেখাবে। 

মনে করুন আপনার মোবাইলের দোকান আছে এখন আপনি ১০ হাজার টাকার মধ্যে কতোগুলো ফোন আছে তার একটা তালিকা দিলেন।  গুগলে কেউ সার্চ করলে আপনার সাইটের সেই তালিকা দেখে সে আপনার থেকে মোবাইল কিনতে পারে।

google adwords এর সাহায্যে আপনি শুধু মোবাইল না যেকোন ব্যাবসা শুরু করতে পারেন। এখানে আপনার প্রোডাক্টের নাম অনুসারে keword research করে তার search volume ও দেখতে পারেন। তবে google adwords এ কোন বিজ্ঞাপন দেখানোর জন্য আপনাকে কিছু pay করতে হবে।
Google adwords থেকে কিভাবে অনলাইন ইনকাম করবো?
adwords অনলাইন ইনকাম

Google adwords থেকে কিভাবে অনলাইন ইনকাম করবো? 

  1. প্রথমে google adwords সাইটে জান।
  2. এখানে একটা ফ্রি একাউন্ট তৈরি করুন।
  3. আপনার keywords খুজুন যাইতে আপনি বিজ্ঞাপন দেখাতে চায়ছেন। 
  4. google adwords এর সাহায্যে আপনার বিজ্ঞাপন চালু করুন।
  5. এই ভাবে google adwords থেকে আপনি টাকা আয় করতে পারেন। 
শেষ কথা final word

আমরা এই পোস্টে জানলাম গুগল থেকে অনলাইন ইনকাম  করার সেরা পদ্ধতি আশা করি  অনলাইন ইনকাম করার এই উপায় গুলো সকলের পছন্দ হয়েছে। এই পোস্টের বিষয়ে আপনার কিছু জানার থাকলে বা কোন প্রশ্ন থাকলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। 

গুগল থেকে অনলাইন ইনকাম এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলে সোশ্যাল মিডিয়ায় আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করে তাদেরও জানার সুযোগ করেদিন।
Read More

লিমিটের পরে কিভাবে ফেসবুক জন্ম তারিখ পরিবর্তন করবেন

Leave a Comment
আপনি কি আপনার ফেসবুকে জন্মদিন পরিবর্তন করতে চায়ছেন কিন্তু জানেন না কি করে ফেসবুক জন্ম তারিখ পরিবর্তন করে? যদি আপনার উত্তর হাঁ হয় তবে এই পোস্ট আপনার জন্য। আজ আমরা এই পোস্টের মাধ্যমে জানবো কিভাবে ফেসবুকের জন্ম তারিখ পরিবর্তন করে। How to change facebook birthday bengali language 

অনেক সময় দেখা যায় ফেসবুকে জন্ম তারিখ পরিবর্তন করতে গিয়ে লিমিট আসে এর আগেও পরিবর্তন করা হয়েছে বলে There is a limit to how many times you can change your birthday, so you may have to wait a few days if you've recently changed it. তারা 2nd স্টেপ ফলো করুন।
Facebook birthday change after limit
ফেসবুক বার্থডে চেঞ্জ

কিভাবে ফেসবুকে জন্ম তারিখ পরিবর্তন করবো



Step-1 ফেসবুকে জন্ম তারিখ বা বার্থডে পরিবর্তন করা খুব সহজ তবু যারা জানেন না তাদের জন্য নিচের স্টেপ বলা হয়েছে।

সরাসরি ফেসবুক জন্ম তারিখ পরিবর্তন facebook birthday change link লিংকে ক্লিক করুন অথবা নিচের স্টেপ ফলো করুন। 
  1. প্রথমে ফেসবুকে লগইন করুন।
  2. এবার আপনার প্রোফাইলে গিয়ে Edit profile info ক্লিক করুন।  
  3. এখানে আপনার দেওয়া জন্ম তারিখ দেখতে পাবেন তার পাশে Edit ক্লিক করুন। 
  4. এখানে Drop Down মেনুর মধ্যে আপনার বার্থডে দেখতে পাবেন। 
  5. জন্ম তারিখ সিলেক্ট করে Save  ক্লিক করুন। 

ফেসবুক বার্থডে চেঞ্জ  বা জন্ম তারিখ পরিবর্তন করুন লিমিটের পড়েও



Step-2 আপনি যদি আগে কখনো ফেসবুকের জন্ম তারিখ পরিবর্তন করে থাকেন আর দেখেন আপনার জন্ম তারিখ পরিবর্তন হচ্ছে না বা কোন অপশন নেই জন্ম তারিখ পরিবর্তন করার। তবে নিচের স্টেপ ফলো করুন ২৪ ঘন্টার মধ্যে ফেসবুক বার্থডে পরিবর্তন হয়ে যাবে।

  1. প্রথমে facebook birthday change link এখানে ক্লিক করুন। 
  2. এবার Drop down করে আপনার জন্ম তারিখ সিলেক্ট করুন 
  3. এবার please select ক্লিক করে It’s my real birthday ক্লিক করুন। 
  4. নিচে থেকে send করে দিন।
ফেসবুক জন্ম তারিখ পরিবর্তন কিভাবে করবো

শেষ কথা (Note)
এই পদ্ধতিতে আপনি যতো বার খুশি আপনার জন্মদিন পরিবর্তন করতে পারবেন তবু বলবো । বার বার facebook birthday chang না করাই ভাল তাইতে আপনার আইডি নষ্ট হতে তাই যেটা আপনার সঠিক জন্মদিন সেটাই রাখুন তাহলে ফেসবুক আইডি নষ্ট হলেও আবার উদ্ধার করা সম্ভব হবে।
Facebook birthday change link

1. https://m.facebook.com/profile/edit/infotab/section/forms/?section=basic-info&cb=1589130113

2. https://m.facebook.com/help/contact/233841356784195?

ফেসবুক জন্ম তারিখ পরিবর্তন
ফেসবুকের জন্ম তারিখ পরিবর্তন
ফেসবুকে জন্ম তারিখ পরিবর্তন
ফেসবুক বার্থডে চেঞ্জ
Read More

Google Custom Search Box ব্লগ সাইটে কিভাবে যুক্ত করবেন? ব্লগের জন্য সুন্দর Search Bar Code

Leave a Comment
আপনি কি জানেন আপনার ব্লগ সাইটে Google Customs Search Box যুক্ত করে আয় করা সম্ভব? গুগলের সার্চ কোড আমাদের ব্লগে যুক্ত করলে সেখানে যখন কোন ভিজিটর কিছু সার্চ করে তবে সার্চ রেজাল্টে গুগল কিছু এড সাইট দেখায় তার থেকে আমরা এডসেন্সের মাধ্যমে ব্লগ সাইট থেকে আয় করতে পারি। আপনি যদি Google Adsense ব্যবহার করে থাকেন তবে আপনার ব্লগ সাইটে যুক্ত করেনিন গুগল কাস্টম সার্চ বক্স।

আমাদের ব্লগে Google Customs Search Bar যুক্ত করে আমরা গুগক সার্চ ইঞ্জিন থেকে ব্লগের মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারি।গুগল সার্চ ইঞ্জিনে আমাদের কতোগুলো পোস্ট ইন্ডেক্সিং হয়েছে সেটা দেখতে পাবো। আমাদের ভিজিটর তাদের পছন্দের মত সার্চ করতে পারবেন।

এছাড়া আমাদের ব্লগার সাইটে যেসকল সার্চ বক্স থাকে সেগুলো অতোটা সুন্দর হয়না। সেখানে দেখা যায় কিছু ব্লগার থিমে হয় Search Bar নেই অথবা সার্চ বক্স বোঝায় যায় না। এই সকল বিষয় চিন্তা করেই আপনাদের কাছে নিয়ে এলাম ব্লগারে যুক্ত করার জন্য সুন্দর একটি সার্চ বক্স।
Google Custom Search Box ব্লগ সাইটে কিভাবে যুক্ত করবেন?  ব্লগের জন্য সুন্দর Search Bar Code
Custom Search Bar Code

ব্লগার সাইটে Google Custom Search Bar কিভাবে যুক্ত করবেন 


আপনার ব্লগার সাইটে গুগল কাস্টম সার্চ বার যুক্ত করে গুগল সার্চ ইঞ্জিন থেকে আয় করতে চায়লে নিচের স্টেপ ফলো করুন। এখানে গুগল সার্চ বক্স কোড কিভাবে তৈরি করবেন আর আপনার ব্লগে যুক্ত করবেন দেওয়া হয়েছে। 

Step:1- প্রথমে Google Adsense একাউন্টে লগইন করে 3 লাইনে ক্লিক করে Ads for search এর নিচে Custom Search engines ক্লিক করুন।

Google Custom Search Box ব্লগ সাইটে কিভাবে যুক্ত করবেন

Step:2- এবার New custom search engine ক্লিক করুন।
add Google Custom Search Box blogger

Step:3- এখানে আপনার সার্চ বক্সের কোন নাম দিতে পারেন অথবা খালি রেখে  save and get code ক্লিক করুন তারপর কোডটা পুরো কপি করেনিন।
  ব্লগের জন্য সুন্দর Search bar code

Google Custom Search Box ব্লগে কিভাবে যুক্ত করবেন 


এডসেন্স থেকে আমরা গুগল কাস্টম সার্চ বক্স কোড পেয়ে গেলাম এবার সেটা আপনার ব্লগে যুক্ত করতে নিচের স্টেপ ফলো করুন। 

Step:1- প্রথমে আপনার ব্লগে লগইন করে হোম পেজ থেকে Layout ক্লিক করুন। 

add search box code in blogger

Step :2- এবার আপনার ব্লগের যেখানে Custom Search Bar  দেখাতে চান Add a gadget  ক্লিক করুন। 

how to add search bar in blogger

Step:3- এবার নতুন একটা পেজ আসবে এখানে HTML/Javascript এর পাশে (+) আইকনে ক্লিক করুন। 

blogger search bar html javascript


Step:4- ওপরের ছোট বক্স খালি রেখে মাঝের বক্সে Search Html কোড যেটা তৈরি করলেন সেটা দিয়ে Save করে দিন।
blogger search bar html code

নোট- Search Box Code তৈরি করার ২০ মিনিট পর কাজ করে। এবার আপনার ব্লগ সাইটে গিয়ে দেখেনিন গুগল কাস্ট সার্চবার ঠিক কাজ করছে কি।

যাদের এডসেন্স একাউন্ট নেই বা যারা এডসেন্সের এপ্রভেল এখনো পাননি তারা গুগল অফিসিয়াল সার্চ সাইট থেকেও Google Custom Search Bar তৈরি করতে পারেন।

আরও জানুন > অনলাইন আয় করতে কিভাবে ব্লগ সাইট তৈরি করবো
আরও জানুন >ব্লগিং করে টাকা আয় করার best add network সাইট

ব্লগস্পোট blogger এর জন্য সুন্দর Search Bar HTML Code

আপনার যদি গুগল সার্চ বক্স পছন্দ না হয় অথবা আপনি যদি মনে করেন আপনার ব্লগের ভিজিটর শুধু আপনার সাইটের পোস্ট সার্চ করে খুঁজে পায় তবে নিচের কোডটা আপনার জন্য।

নোট- নিচে দেওয়া কোডটা গুগলের না তাই এখানে আপনার ভিজিটর সার্চ করলে আপনি কোন অর্থ পাবেন না। কিন্তু এই Search HTML কোডটা আপনার ব্লগে যুক্ত করলে বেশ সুন্দর লাগবে। ব্লগে Custom Search Box কিভাবে যুক্ত করে  স্টেপ ওপরে বলা আছে।

ব্লগে নিচের দেওয়া কোড যুক্ত করতে প্রথমে কোডটা সম্পূর্ণ কপি করুন আর আপনার ব্লগের Layout  >>Add a gadget >> HTML/Javascript এ সেভ করেদিন।

<form _lpchecked='1' action='/search' class='search-form' id='searchform' method='get'>
                               <fieldset>
                           <input id='s' name='q' onfocus='if(this.value==&apos;Search&apos;)this.value=&apos;&apos;;' onwebkitspeechchange='transcribe(this.value)' type='text' value='Search' x-webkit-speech=''/>
                               </fieldset>
                             </form>

শেষ কথা 
How to add custom search bar in blogger আশা করি আপনার ব্লগস্পট ব্লগের জন্য সুন্দর সার্চ বক্সটি আপনার পছন্দ হবে। আর আপনার ব্লগে সার্চ বক্স যুক্ত করতে কোন সমস্যা হলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।

আরও জানুন >গুগল Adword ওয়েবসাইটের জন্য কিভাবে কাজ করে
আরও জানুন > blogger favicon কিভাবে তৈরি করে ব্লগে যুক্ত করে
Read More

31 plus beautiful eid mubarak images free download & share

Leave a Comment
আজ আমরা আপনাদের কাছে নিয়ে এসেছি সুন্দর সুন্দর eid mubarak images যার সাহায্যে আপনি আপনার বন্ধুদের eid mubarak wish করতে পারেন।

(covid19) কারণে এখনো বহু দেশের মানুষ গৃহ বন্দি হয়ে রয়েছেন এমন অবস্থায় আপনি আপনার বন্ধু, কুটুম আত্মীয়দের সাথে এই eid mubarak images দিয়ে eid wish জানাতে পারেন।

এই eid mubarak picture টি ডাউনলোড করতে চায়লে প্রথমে আপনার পছন্দের best eid mubarak image টি ২-৩ সেকেন্ড চেপে ধরে থাকুন তাহলে ডাউনলোড অপশান পেয়ে যাবেন।

eid mubarak images 2020 আপনার পছন্দের ঈদের ছবিটি আপনি সোশ্যাল সাইট facebook, twitter, pinterest, whatsapp ইত্যাদি সাইটে সকলের সাথে শেয়ারও করতে পারবেন।
জানুন বখরি ঈদ বা কোরবানি ঈদের ইতিহাস

31 plus beautiful eid mubarak images free download & share


এবছর Eid-al-Fitr 2020 may-24 তারিখে রবিবার। তাই আগে থেকে কিছু Eid mubarak images free download করে রেখে দিন। যাতে সঠিক সময়ে রমজান মাসের পবিত্র ঈদে আপনার বন্ধু ও আত্মীয়ের সাথে শেয়ার করতে পারেন।

eid mubarak images hd
Eid Mubarak Images

eid mubarak hd images free download
Eid Mubarak Images

eid mubarak images free download
Eid Mubarak Images

eid mubarak pictures
Eid Mubarak Pictures

New Eid mubarak images
Eid Mubarak Images

Eid Mubarak Hd Images
Eid Mubarak Images

Eid Mubarak images free download
Eid Mubarak Images

eid mubarak images bangla
Eid Mubarak Images

eid al fitr images free download
Eid Mubarak Images

eid mubarak images download free
Eid Mubarak Images

Eid mubarak wishes image
Eid mubarak wishes image

best eid mubarak images
Eid Mubarak images

Best eid mubarak images download
Eid mubarak images

eid wishes image
Eid Mubarak Images

eid mubarak images 2020
Eid Mubarak Images

eid mubarak images download
Eid Mubarak Images

Eid mubarak images photo
Eid Mubarak Images

Eid Mubarak images picture
Eid Mubarak images



Eid mubarak wishes pictures
Eid Mubarak Images

Eid mubarak images pic free download
Eid mubarak images

Eid mubarak hd images free download 2020
Eid Mubarak Images

Eid mubarak hd pictures
Eid mubarak images


Read More

ফেসবুক কেয়ার রিয়েক্ট ইমোজি কিভাবে পাবো?| how to enable facebook care react emoji

Leave a Comment
ফেসবুক কেয়ার রিয়েক্ট। যেমনটা আপনারা জানেন আজকাল ফেসবুকে খুব Trends হয়ে দাঁয়রেছে ফেসবুকের এই নতুন Care React সকলেই চাইছেন তাদের আইডি থেকেও জানো এই কেয়ার রিয়েক্ট দেওয়া যায়। আজ আমরা এই বিষয়েই আলোচনা করবো কি এই ফেসবুক কেয়ার রিয়েক্ট। কিভাবে পাবো facebook care react কখন ফেসবুক কেয়ার রিয়েক্ট ব্যবহার করতে হয়।
fb care react

ফেসবুক Care React Emoji সম্পর্কে 



ফেসবুক কেয়ার রিয়েক্ট আজ 1 May দেখা যাচ্ছে ফেসবুকে খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে কিন্তু এটা ১ মাস আগে থেকেই আমেরিকাতে চালু হয়ে যায় এই care react emoji সকলেই পাবেন শুধু একটু অপেক্ষা করুন। 

এখন এই করোনা ভাইরাসের মহামারীর (Covid 19)  পোস্ট যখন ফেসবুকে দেখা যাচ্ছে। তখন কোন ব্যাক্তি এই রোগ থেকে সুস্হ হয়ে বাড়ি ফিরলে অনেকে এমন পোস্টে wow react দিচ্ছে আবার কোন ব্যাক্তি করোনা প্রজেটিভ হলে সেখানে sad react দিচ্ছে। এই কারণে ফেসবুক কর্তীপক্খ কেয়ার রিয়েক্ট নিয়ে এসেছে।

Facebook Care React কিন্তু এখনো সব দেশে চালু হয়নি তার আসল কারণ প্রত্যেক দেশের ফেসবুক আলাদা সার্ভার ব্যবহার করে থাকে। এখন আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে তবে কিভাবে পাবো ফেসবুক কেয়ার রিয়েক্ট ইমোজি।

ফেসবুকের এই কেয়ার রিয়েক্ট আপনি ফেসবুক সফটওয়্যার দিয়ে বা আপনার মোবাইল ব্রাউজার ব্যবহার করে দিতে পারবেন ।

ফেসবুকে মেয়ে পটানোর গোপন কৌশল
মেয়েদের রোমান্টিক ফেসবুক নাম
ফেসবুক ভিডিও কিভাবে ডাউনলোড করবেন

ফেসবুক কেয়ার রিয়েক্ট ইমোজি কিভাবে পাবো? How to enable facebook care react emoji


ফেসবুক কেয়ার রিয়েক্ট ইমোজি আপনি যদি এখনো না পেয়ে থাকেন তবে চিন্তা করার কিছু নেই এই টিপস অনুযায়ী আপনি কাজ করলে অবশ্যই পাবেন। 

How to get facebook care react 

ফেসবুক #CareReact নিয়ে অনেকে ফেসবুকে অনেক রকম মতামত দিচ্ছেন কেউ বলে #198 লেখো কেউ বা বলে #Care লেখো আবার কেউ বলে আমার পেজ শেয়ার করো। গুরুপে ইনভাইট করো ইত্যাদি ইত্যাদি কমেন্ট করো। 

এটাও এখন ফেসবুকে trends হয়ে দয়রেছে। আপনি যদি সত্যি কেয়ার রিয়েক্ট পেতে চান তবে আপনাকে বলি এসব কিছু না করে আপনার Facebook Lite সফটওয়্যারটি আপডেট করেনিন আর যদি না থাকে তবে প্লেস্টোর থেকে ডাউনলোড করেনিন আপনি কেয়ার রিয়েক্ট পেয়ে যাবেন। 

(নোট Facebook Care React সঙ্গে সঙ্গে পাওয়া যায় না fb lite আপডেট হওয়ার ২৪ ঘন্টার মধ্যে এই রিয়েক্ট আপনি পাবেন।) এছাড়াও আপনি আপনার মোবাইল ব্রাউজার দিয়ে fb.com সাইটে গিয়ে এই রিয়েক্ট দিতে পারবেন আর যদি  না পেয়ে থাকেন কমেন্ট করে জানাবেন পোস্ট ভাল লাগলে অবশ্যই শেয়ার করবেন ধন্যবাদ।

FACEBOOK LITE UPDATE 
Read More

Quora কি? বাংলা Quora কিভাবে ব্যবহার করবেন? Quora পার্টনার প্রোগ্রাম কি?

1 comment
আপনি কি কখনো Quora এর নাম শুনেছেন?  আশা করি শুনেছেন কারণ ইন্টারনেট জগতে যতো গুলো প্রশ্ন উত্তর সাইট রয়েছে তাদের মধ্যে Quora ১ নম্বরে আছে। Quora হলো বিশ্বের সবচেয়ে বড়ো প্রশ্ন উত্তরের সাইটের মধ্যে অন্যতম। এখানে প্রতি দিন কয়েক লাখ মানুষ প্রশ্ন করে তাদের প্রয়োজনীয় উত্তর খুঁজে বেড়াচ্ছেন। 

আপনিও এখানে যেকোন প্রশ্ন করতে পারেন। এখন Quora ব্যবহার করা অনেক সহজ কারণ এখন Quora ইংরেজি ছাড়াও বাংলা বা হিন্দি ভাষায় চালানো সম্ভব। নিচে বাংলা, হিন্দি ও ইংরেজি Quora সাইটের লিংক দেওয়া হলো আপনি যেই ভাষায় পারদর্শী সেটা ব্যবহার করতে পারেন অথবা সব গুলোই ব্যবহার করতে পারেন একটা Quora একাউন্ট থেকে এর জন্য আলাদা একাউন্ট প্রয়োজন হয় না।

quora.com - ইংরেজি কোরা
hi.quora.com - হিন্দি কোরা
bn.quora.com - বাংলা কোরা
Quora কি?

Quora কি? 

Quora একটা প্রপুলার প্রশ্ন উত্তর সাইট। ২০০৯ সালে ফেসবুক কর্মীদের একজন অ্যাডাম ডি অ্যাঞ্জেলো এবং চার্লি চেভারের সহযোগিতায় এই সাইটটি তৈরি হয়। এখানে আপনি যেকোনো ধরনের প্রশ্ন করতে পারেন বাংলা ছাড়াও আপনি হিন্দি ইংলিশ Quora ব্যবহার করতে পারেন।

আপনি যদি লেখা লিখি করতে পছন্দ করেন তবে আপনি বাংলা Quora ব্যবহার করতে পারেন এখানে প্রতি সপ্তাহে সেরা শীর্ষ লেখকের তালিকা ও তাদের উত্তর ভোটের মাধ্যমে অভিনন্দনের সাথে শেয়ার করা হয়ে থাকে।

Quora একবার ব্যবহার করলে যেকোনো মানুষের ভাল লাগবে। বাংলা Quora ব্যবহার করার সবথেকে ভাল সুবিধা এখানে বাংলা ভাষায় সমস্ত প্রশ্ন উত্তর দেওয়া হয়। আর এখান থেকে অনেক নতুন কিছু শেখার সুবিধা রয়েছে।

প্রশ্ন উত্তর বাংলা Quora তে আপনি হিজিবিজি কোন নাম রাখতে পারবেন না এখানে আপনাকে আপনার আসল পরিচয় দিয়েই একাউন্ট তৈরি করতে হবে। আপনি অন্য কোন নাম রাখলে নাম বদলানোর নোটিফিকেশন অথবা আপনাকে Quora থেকে block ও করতে পারে এদের এডমিন।

Quora আপনি বিশ্বের যেকোনো দেশ থেকে ব্যবহার করতে পারেন তবে শুধু বাংলা Quora ব্যবহার করতে হলে আপনার Quora প্রোফাইল থেকে আপনার ভাষা সিলেক্ট করে bn.quora.com থেকে ব্যবহার করতে পারেন।

Bangla Quora থেকে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় বিষয় গুলো অনুসরণ করতে পারেন যেই বিষয়ে আপনি জানেন বা জানতে চায়ছেন তাহলে Quora সেই সম্পর্কের প্রশ্ন উত্তর গুলো আপনার হোম পেজে দেখাবে।

Quora তে অনেক বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়ে থাকে যেমন সাহিত্য, স্বাস্থ্য, দর্শন, প্রযুক্তি, বিজ্ঞান, শিক্ষাদান, ভ্রমণ, ইন্টারনেট, খাবার, রান্না ইত্যাদি, এখানে আপনি যেকোনো বিষয় অনুসরণ করতে পারবেন আর আপনার বিষয় না খুঁজে পেলে আপনি নতুন বিষয় নিজেও তৈরি করতে পারেন।

কিভাবে Quora তে একাউন্ট তৈরি করবো?



Quora ব্যবহার করলে আপনার প্রশ্ন বা উত্তর গুগলের প্রথম সারিতে চলে আসে যদিও বাংলা Quora ব্যবহার কারি একটু কম কিন্তু মানসম্মত উত্তর দিলে এখানে আপনি ভাল সন্মান পাবেন।

অন্যরা তাদের উত্তর জানার জন্য আপনাকে অনুরোধ করতে পারেন। এছাড়াও আপনার Quora প্রফাইলে সঠিক তথ্য দেওয়া থাকলে আর আপনার নাম কোন ব্যাক্তি গুগলে সার্চ করলে ছবি সহ গুগল আপনার প্রফাইল তাকে দেখাবে।

Quora তে অ্যাকাউন্ট তৈরি করা খুব সহজ এখানে আপনি আপনার ফেসবুক আইডি বা গুগল আইডি দিয়েও লগইন করতে পারেন। ফেসবুক বা গুগল দিয়ে লগইন করতে bn.quora.com এখানে ক্লিক করুন।
Quora কি?  বাংলা Quora কিভাবে ব্যবহার করবেন?
যদি আপনার মনে হয় ফেসবুক বা গুগল দিয়ে লগইন করবেন না তবে আপনি ইমেইল দিয়ে সাইন আপ করতে পারেন তার জন্য Signup Bangla Quora এখানে চলে যান।

নিচের স্কিন সটে আমি যেমন ভাবে লিখেছি একি ভাবে আপনিও ফর্মটা পূরণ করুন। শুধু মনে রাখবেন পাসওয়ার্ড এখানে ৮ টা দিতে হবে আর তাইতে বড় হাতের ছোট ইংরেজি কিছু দিতে হবে আর একটা সংখ্যা দিতে হবে যেমন- Banty420

বাংলা Quora ব্যবহার

এবার এখানে আপনাকে ১০ টা বা তার বেশি বিষয়ে টিক দিতে হবে যেসকল বিষয়ে আপনি বেশি আগ্রহ টিক দিয়ে নিচে লেখা হয়ে গেছে ক্লিক করলেই আপনার একাউন্ট তৈরি।
বাংলা quora তে অ্যাকাউন্ট তৈরি

Quora তে একাউন্ট তৈরি হয়ে গেলে আপনার প্রফাইল ছবি, আপনার ঠিকানা, আপনি কোন কোন ভাষা জানেন এই সকল তথ্য গুলো দিয়ে দেবেন তাহলে Quora থেকে উত্তর পেতে এবং বেশি মানুষের সাথে পরিচিত হতে সুবিধা হবে।

Quora - তে কিভাবে প্রশ্ন করতে হয়? 



Quora ব্যবহার খুব সহজ আপনি মনে করলে প্লেস্টোর থেকে Quora সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করে নিতে পারেন অথবা আপনার মোবাইল ব্রাউজার দিয়েও চালাতে পারবেন। Quora তে প্রশ্ন করতে নিচের স্টেপ ফলো করুন। 

step:1- Quora হোম পেজ থেকে যোগ করুন অথবা আপনার প্রশ্ন বা লিংক কি ক্লিক করুন।
Quora কি?  বাংলা Quora কিভাবে ব্যবহার করবেন?

step:2- এবার যেই নতুন পেজটি খুলবে সেখানে
১) আপনার প্রশ্নটি লিখুন।
২) আপনার প্রশ্নটি বোঝানোর জন্য কোন লিংক থাকলে দিন নাহলে খালি ছেড়ে দিন।
৩) ওপর থেকে যোগ করুন ক্লিক করুন।
Quora কি?  বাংলা Quora কিভাবে ব্যবহার করবেন?
step:3- এখানে আপনার প্রশ্নের রিলেটেড আরও প্রশ্ন নিচে দেখানো হবে একি প্রশ্ন হলে দেখতে পারেন অথবা যোগ করুন অপশানে ক্লিক করুন।
quora অ্যাকাউন্ট তৈরি

step:4- এখানে আপনার প্রশ্নের বিষয় অনুযায়ী যারা আগে উত্তর দিয়েছেন তাদের একটা তালিকা আসবে আপনি আপনার প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য + চিহ্নে ক্লিক করে তাদের অনুরোধ করতে পারেন অথবা ওপর থেকে কাওকে সার্চ করতে পারে।

এখানে আপনি ২৫ জনের বেশি কাওকে অনুরোধ করতে পারবেন না। হয়ে গেলে ওপর থেকে হয়ে গেছে ক্লিক করলে আপনার প্রশ্নটও পাবলিশ হয়ে যাবে।
বাংলা quora তে অ্যাকাউন্ট তৈরি

Quora পার্টনার প্রোগ্রাম কি? কিভাবে কোরা পার্টনার প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করবো?


সাম্প্রতিক Quora তাদের ব্যবহার কারিদের জন্য নিয়ে এসেছে পার্টনার প্রোগ্রাম। যদিও এটা ইংরেজি কোরাতে আগে থেকে ছিল। কিন্তু December মাসের শেষের দিকে বেশ কিছু বাংলা কোরা ব্যবহারকারি তাদের ইমেইলে Quora পার্টনার প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করার জন্য আমন্ত্রণ পান। 

Quora তাদের ব্যবহার কারির প্রশ্নের উপর ভৃত্যি করে পার্টনার প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ কারীদের তাদের লাভের একাংশ দিয়ে থাকে। এই পার্টনার প্রোগ্রামে নিজের থেকে অংশগ্রহণ করা সম্ভব না। Quora আপনার প্রশ্ন উত্তর এবং ব্যবহারের উপর ভৃত্যি করে আপনাকে ইমেইল করবে সেই ইমেইল থেকে আপনি পার্টনার প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

Quora পার্টনার প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করতে হলে আপনাকে নিয়মিত Quora ব্যবহার করতে হবে। নিত্যনতুন প্রশ্ন করতে হবে। আপনার প্রশ্ন মানসম্মত হতে হবে এমন কিছু প্রশ্ন করুন যেগুলো মানুষের সর্বদা প্রয়োজন হয়। প্রশ্ন করার সময় প্রশ্নের সঠিক বিষয় বাছুন। আপনার প্রশ্নে উত্তর দেওয়ার জন্য অনুরোধ করুন।

মনে রাখবেন কোরাতে কোন উত্তর লেখার জন্য অর্থ দেওয়া হয় না কিন্তু উত্তরের ওপরে ভিত্তি করে বেশি সংখ্যার মানুষ আপনার প্রশ্নকে দেখবে তাই আপনার প্রশ্নে ভাল উত্তর পাওয়ার জন্য bangla quora এর শীর্ষ লেখকদের অনুসরণ করতে হবে। আপনার জানা প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। প্রশ্নের সঠিক বিষয় বাছতে হবে।

Quora পার্টনার প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করতে হলে দৈনন্দিন জীবনে মানুষ যেসকল বিষয় নিয়ে আলোচনা করে যেগুলো বেশি বেশি মানুষের প্রয়োজন হয় এমন বিষয় নিয়ে প্রশ্ন করুন যেমন ধরুন মাংস রান্না কিভাবে করে? এই প্রশ্ন সব সময় গুগলে ট্রেন্ডিং থাকে।

খেয়াল রাখবেন আপনার প্রশ্ন জানো একি রকম না হয়। মানে আজ মাংস রান্না জিজ্ঞেস করলেন কাল আবার ভাত রান্না জিজ্ঞাস করবেন না। আর ভাল উত্তর পাওয়ার আশায় এমন কোন প্রশ্ন করবেন না যেসকল প্রশ্ন আগে থেকেই কোরাতে রয়েছে। এমন প্রশ্ন করলে আপনার পার্টনার একাউন্ট ব্লক করে দিতে পারে কোরা টিম। কোরা পার্টনার প্রোগ্রামের বিষয়ে আরও জানতে নিচের লিংকে ক্লিক করুন।

বাংলা Quora পার্টনার প্রোগ্রাম

শেষ কথা Final word 

বন্ধুরা আজ আমরা জানলাম Quora কি?  কিভাবে Quora ব্যবহার করতে হয় আর Quora পার্টনার প্রোগ্রাম বিষয় নিয়ে। আশা করি আজকের পোস্ট আপনার ভাল লেগেছে। এই আর্টিকেল সম্পর্কিত কোন প্রশ্ন থাকলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাতে পারেন। আর আমাদের পোস্ট যদি ভাল লাগে তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন ধন্যবাদ। 


Read More
Previous PostOlder Posts Home
Meet The Author

আমার নাম সন্তোষ মন্ডল (বান্টি)। আমি ভারতের হাওড়া জেলার বাসিন্দা। একটা প্রাইভেট লিমিটেড কম্পানিতে চাকরি করি এবং মাঝের মধ্যে ব্লগিং বিষয়ে এখানে লেখালিখি করি।

author